Lifestyle

“টুয়েলভথ ফেইল” এর অজানা কিছু তথ্য জানুন

টুয়েলভথ ফেইল: আইপিএস কর্মকর্তা মনোজ কুমার শর্মাকে নিয়ে ঔপন্যাসিক অনুরাগ পাঠকের উপন্যাস ‘টুয়েলভথ ফেল’ অবলম্বনে সিনেমাটি নির্মাণ করেছেন নির্মাতা বিধু বিনোদ চোপড়া। সিনেমার গল্পে দেখা গেছে, ভারতের চম্বল এলাকার এক নিম্নবিত্ত পরিবারের তরুণ মনোজ কঠিন জীবনসংগ্রাম চালিয়ে আইপিএস কর্মকর্তা হয়েছেন। মনোজের চরিত্রে অভিনয় করে প্রশংসা কুড়িয়েছেন অভিনেতা বিক্রান্ত ম্যাসি। ছবিটি দেখতে পারেন এখানে

অল্প বাজেটের এই সিনেমাটি গত বছরের ২৭ অক্টোবর বড় পর্দায় মুক্তি পায়। দুমাস পর ২৯ ডিসেম্বর ওটিটি প্লাটফর্ম ডিজনি প্লাস হটস্টারে মুক্তি দেওয়া হয়। এর কিছুদিনের মধ্যেই সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয় সিনেমার কিছু দৃশ্য। জীবনের গল্পটি নাড়া দেয় সিনেমা প্রেমীদের। অনেকেই এই সিনেমায় নিজেকে খুঁজে পান। এরপর যা হওয়ার তাই হয়েছে; ‘টুয়েলভথ ফেইল’ সিনেমাটি দেখতে হুমড়ি খেয়ে পড়ছেন দর্শকেরা। ২০২৩ সালে বলিউডের সবচেয়ে ব্যবসাসফল সিনেমাগুলোর মধ্যে জায়গা করে নেয় সিনেমাটি।

বিস্তারিত ঘটনা(টুয়েলভথ ফেইল)

সম্প্রতি ওটিটি প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পাওয়ার পর থেকে মূলত বাংলাদেশি দর্শকের নাগালে চলে এসেছে ‘টুয়েলভথ ফেইল’। আর সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবিটি নিয়ে রীতিমতো আলোচনার ঝড় বইছে। এর বিভিন্ন সংলাপ ভাইরাল হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে ফেসবুকের দেয়ালে দেয়ালে। অনেকেই বলছেন, ২০২৩ সালের সেরা হিন্দি সিনেমা এটি। 

আইপিএস কর্মকর্তা মনোজ কুমার শর্মাকে নিয়ে ঔপন্যাসিক অনুরাগ পাঠকের উপন্যাস ‘টুয়েলভথ ফেল’ অবলম্বনে সিনেমাটি নির্মাণ করেছেন নির্মাতা বিধু বিনোদ চোপড়া। সিনেমার গল্পে দেখা গেছে, দেশটির উত্তরাঞ্চলের এলাকা চাম্বালে জন্ম মনোজের। যেখানে অনিয়ম আর দুর্নীতিই শেষ কথা। এমনকি স্কুলগুলোতে পর্যন্ত প্রকাশ্যে চলে অনিয়ম। পরীক্ষার হলে শিক্ষক নিজেই বোর্ডে উত্তর লিখে শিক্ষার্থীদের পাস করান। এরকম এক অঞ্চলে প্রচণ্ড সততা নিয়ে বাঁচে মনোজের বাবা। আর সে কারণে সামান্য ক্লার্কের চাকরিও হারায়।

সংসারের ঘানি টানতে বড় ভাইয়ের সঙ্গে জুগাড়ে (যাত্রী পরিবহণের স্থানীয় এক বাহন) যোগ দেয় মনোজ। কিন্তু সেখানেও বাধা হয়ে দাঁড়ায় অনিয়ম। ঘটনাক্রমে এক সৎ পুলিশ অফিসারের দেখা পায় মনোজ। যাকে দেখে সৎ উপায়ে জীবনে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার স্বপ্ন দেখে সে ১২ শ্রেণিতে ফেল করা মনোজ। কিন্তু প্রত্যন্ত গ্রামে থেকে তো সেটা সম্ভব নয়। তাই অদম্য জেদ নিয়ে ছুটে যায় শহরে। যেখানে তার জন্য অপেক্ষা করছে অকল্পনীয় সংগ্রাম। সেই সংগ্রাম পেরিয়ে কীভাবে কাঙ্ক্ষিত স্বপ্ন পূরণ হয়, তা-ই উঠে এসেছে ‘টুয়েলভথ ফেইল’-এ।  

এই গল্প নিছক গল্প নয়, বাস্তব ঘটনা। আর উপমহাদেশের অধিকাংশ যুবকের জীবনের সঙ্গেই এর কিছুটা মিল রয়েছে। এর পাশাপাশি ছবির অভিনয়শিল্পীরা যার যার জায়গায় অনবদ্য কাজ করেছেন। যার ফলে দর্শকের হৃদয় ছুঁতে পারছে ছবিটি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button